দেখে নিন চোখের ফোলাভাব দূর করতে করণীয়

0

বাইরে যাবার জন্য তৈরি হচ্ছেন বা কোন অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন, সাজগোজের দিক থেকে সব ঠিকঠাক। এমন সময় যদি দেখেন চোখের ফোলাভাব বা আইব্যাগ তাহলে তো এই পুরো সময়ের সাজটাই মাটি। তবে ঘরোয়া কিছু টিপস জানা থাকলে খুব সহজে দূর করতে পারবেন চোখের ফোলাভাব। চলুন জেনে নেই উপায়গুলো-

ঠাণ্ডা পানি বা বরফ :
বেশিরভাগ সময়ই চোখের নীচটা ফুলে থাকে রক্ত চলাচলে হওয়া সমস্যার কারণে। এক্ষেত্রে চোখের নীচের শিরাগুলো দিয়ে যে তরল যতটা ও যেভাবে যাওয়া দরকার তেমনভাবে প্রবাহিত হয়না। ফলে ফুলে ওঠে চোখের নিচ। ব্যাগ তৈরি হয় সেখানে। আর তাই প্রথমেই খানিকটা ঠান্ডা পানি বা বরফ লাগিয়ে নিন ফোলা স্থানটিতে। এতে করে তরল ঠিকঠাকভাবে প্রবাহিত হবে। তবে সাবধান! কয়েক সেকেন্ডের বেশি যেন সেটা না করা হয়। অন্যথায় ভালোর বদলে খারাপ ফলাফল পেতে পারেন।

শসা কিংবা আলু :
শসার ভেতরে সাধারণত অনেকটা পানি থাকে। ফলে দু টুকরো শসা চোখের ওপর দিয়ে রাখলে খানিকটা সময়ের জন্যে সেটা আপনার চোখের নীচ দিয়ে প্রবাহিত করলকে সংকুচিত বা বন্ধ করে দেয়। এছাড়াও ভালো ফলাফলের জন্যে একটি আলুকে সারারাত ফ্রিজের ভেতরে রেখে দিয়ে সকালবেলায় সেটাকে টুকরো করে ৫-১০ মিনিটের জন্যে চোখের ওপরে রেখে দিন। এতে করে খুব দ্রুত খানিকটা হলেও কমে যাবে আপনার চোখের নীচের ফোলা ভাব।

টেবিল চামচ :
অবাক করা হলেও সত্যি যে একটা টেবিল চামচও খুব সহজেই আপনাকে মুক্তি দিতে পারে চোখের নীচের ফোলা ভাব থেকে। এক্ষেত্রে চামচটিকে অনেকক্ষণের জন্যে ফ্রিজের ভেতরে রেখে ঠাণ্ডা হতে দিন। এরপর সেটাকে বের করে নিয়ে আই ব্যাগের ওপরে চেপে ধরুন। ফোলাভাব কমে যাবে। ভালো ফলাফলের জন্যে পরপর দু সপ্তাহ অন্তত এটি করুন।

টি ব্যাগ :
চোখের ব্যাগের জন্যে টি ব্যাগ বেশ কার্যকরী এক পদ্ধতি। প্রথমে এক কাপ ঠান্ডা পানিতে চায়ের ব্যাগ ডুবিয়ে নিন। এরপর যথেষ্ট ঠান্ডা হলে সেটাকে বের করে এনে চিপে ফেলুন আর বসিয়ে দিন আপনার চোখের ওপর। ব্যাগগুলো স্বাভাবিক তাপমাত্রায় না আসা অব্দি চোখের ওপরেই রেখে দিন সে দুটোকে। আধ ঘন্টা অব্দি এমনটা করুন আর দেখে নিন অবাক করা ফলাফল।

দুধ ও ডিম :
দুধ কিংবা ডিম- এ দুটোও বেশ কাজে আসতে পারে আপনার চোখের ফোলাভাব দূর করতে। দুধের বেলায় প্রতিদিন অন্তত একবারের জন্যে ঠাণ্ডা দুধে ভেজানো তুলোকে লাগিয়ে নিন চোখের ওপর। আর সেটা অন্তত আধঘন্টার জন্যে। শুধু আই ব্যাগই নয়, ডার্ক সার্কেল দূর করতেও সাহায্য করবে আপনাকে এই দুধে ভেজানো তুলো। ডিমের বেলায় ডিমের কুসুমকে আলাদা করে নিয়ে কেবল সাদা অংশটি চোখের ফোলা জায়গাতে লাগিয়ে নিন আর টানটান ভাব না আসা অব্দি অপেক্ষা করুন।

আইব্যাগ দূর করার জন্যে এ উপায়গুলো কার্যকরী হলেও এগুলো ব্যবহারের আগে আপনার চেষ্টা করা উচিত যাতে আইব্যাগ তৈরিই না হয় আপনার চোখের নীচে। আর তাই আইব্যাগের হাত থেকে দূরে থাকতে লবণ, অ্যালকোহল ইত্যাদিকে না বলুন। চেষ্টা করুন পর্যাপ্ত ঘুমোতে আর পানি পান করতে।

Share.

About Author

Leave A Reply

Powered by themekiller.com